কোরআন সুন্নাহ থেকে বিচ্যুত হওয়ার কারণেই আজ মুসলমানদের দুরাবস্থা: আজহারী

0
1

বর্তমান সময়ে বাংলাদেশের আলোচিত বক্তা মিজানুর রহমান আজহারী এবার মালয়েশিয়ার একটি মাহফিলে ওয়াজ করেছেন। বক্তব্যকালে আজহারী বলেছেন, কোরআন সুন্নাহর আদর্শ থেকে বিচ্যুত হওয়ার কারণেই মুসলমানদের আজ এই দুরাবস্থা। এসব থেকে পরিত্রাণ পেতে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কোরআন সুন্নাহর পতাকাতলে আসার আহ্বান জানান তিনি।

গত রোববার স্থানীয় সময় বাদ মাগরিব মালয়েশিয়ার ছিমোনিয়া জালান সুঙ্গাই লালাংয়ের মসজিদে এক মাহফিলে প্রধান অতিথি হিসেবে তিনি বক্তব্য রাখেন।

মালয়েশিয়ায় প্রবাসী বাংলাদেশীদের মসজিদ সিংইপ জামে মসজিদের ১৩তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে এই ওয়াজ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। প্রথমে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াতের মাধ্যমে মাহফিলের মূল কার্যক্রম শুরু হয়, মাহফিলে হামদ ও না’ত পরিবেশন করেন ইসলামিক শিল্পীরা।

পবিত্র কোরআনে সবচেয়ে শ্রেষ্ঠতর ও ফজিলতপূর্ণ আয়াতুল কুরসির ফজিলতের উপর আলোচনা করতে গিয়ে প্রধান বক্তা আজহারী বলেন, পবিত্র আল কোরআনকে মহান আল্লাহ মানব জাতির হিদায়েত ও জীবন বিধান হিসেবে নাজিল করেছেন। এই মহামূল্যবান গ্রন্থের দ্বিতীয় সুরা আল বাকারার ২৫৫তম আয়াত হলো আয়াতুল কুরসি। এ আয়াতটিতে ১০টি বাক্য রয়েছে। যার প্রত্যেকটিতে আল্লাহর ক্ষমতার কথা বর্ণনা করা হয়েছে।

এর ফজিলত সম্পর্কে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হযরত ওবাই ইবনে কা’বকে জিজ্ঞাস করলেন সবচেয়ে ফজিলত ও গুরুত্বপূর্ণ আয়াত কোনটি? ওবাই ইবনে কা’ব আরজ করলেন, সেটি হচ্ছে আয়াতুল কুরসি। রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তা সমর্থন করলেন এবং বললেন, হে আবুল মানজার! তোমাকে এ উত্তম জ্ঞানের জন্য ধন্যবাদ।

তিনি বলেন, এছাড়াও আয়াতুল কুরসি পাঠ করলে মানব জাতির অনেক কল্যাণ সাধিত হয়, বিভিন্ন বিপদ আপদ থেকে বাঁচা যায়। যে ব্যক্তি এ আয়াতটি বিছানায় শয়নের সময় পড়বে আল্লাহ তার ঘরে, প্রতিবেশীর ঘরে এবং আশপাশের সব ঘরে শান্তি বজায় রাখবেন। কোরআন সুন্নাহর আদর্শ থেকে বিচ্যুত হওয়ার কারণেই মুসলমানদের আজ এই দুরবস্থা। এসব থেকে পরিত্রাণ পেতে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কোরআন সুন্নাহর পতাকাতলে আসার আহ্বান জানান তিনি এবং আয়াতুল কুরসির ফজিলতের উপর বিশদ আলোচনা করেন।

পরে দেশে ও প্রবাসে অবস্থানরত সকল মুসলিম উম্মাহর কল্যাণ কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

মালয়েশিয়ার প্রবাসী ব্যবসায়ী মোহাম্মদ মোজাম্মেল হকের সভাপতিত্বে মাহফিলে বিশেষ বক্তা ছিলেন, মোহাম্মদ আল আমিন ও সার্বিক পরিচালনায় ছিলেন মোহাম্মদ মামুনুর রশিদ মামুন।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশের বাংলাদেশের বিভিন্ন এলকায় ওয়াজ মাহফিলে বক্তব্য দিয়ে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পান মিজানুর রহমান আজহারী। সম্প্রতি তিনি ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে আপাতত ওয়াজ মাহফিল বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়ে মালয়েশিয়ায় চলে যান।